পরীক্ষা ছাড়াই সিজার, মারা গেল মা-সন্তান

প্রকাশিত: 3:13 PM, January 12, 2022
ছবি সংগৃহীত

ধলাই ডেস্ক: ঠাকুরগাঁওয়ে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় নবজাতকসহ প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। ভুল চিকিৎসার কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি স্বজনদের।

মঙ্গলবার রাতে ‘একতা নার্সিং হোম’ ক্লিনিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম নাসিমা খাতুন। ৩০ বছর বয়সী নাসিমা ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দেবীপুর ইউনিয়নের খইলসাকুরি গ্রামের বাসিন্দা।

স্বজনরা জানান, মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে সন্তানসম্ভবা নাসিমাকে ‘একতা নার্সিং হোম’ ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। এরপর কোনো ধরনের পরীক্ষা-নীরিক্ষা ছাড়াই তার সিজারিয়ান অপারেশন করা হয়। সিজারের পর মারা যায় শিশু সন্তানটি। এরপর তাৎক্ষণিক রোগীকে রংপুরে রেফার্ড করেন চিকিৎসক। পরে একটি অ্যাম্বুলেন্স এনে রোগীকে রেখে পালিয়ে যায় ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ।

ওই রোগীর সার্জারি চিকিৎসক ডা. জাহাঙ্গীর বলেন, বাচ্চা পেটেই মৃত ছিল এবং রোগীর বিপি পাওয়া যাচ্ছিল না। এমন অবস্থায় আইসিইউ প্রয়োজন হতে পারে ভেবে রোগীকে দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজে রেফার্ড করি। কিন্তু স্বজনরা তাকে নিয়ে যেতে রাজি হননি। দ্রুত রংপুরে নিলে হয়তো রোগীটিকে বাঁচানো যেতো।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।